শুক্রবার আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে “গানে-শ্লোগানে প্রাণের মিলনমেলা” এই শিরোনামকে সামনে রেখে রাজধানীর তোপখানা রোডের বিএমএ ভবন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হল ওমেন কনসার্ট।

বাংলাদেশের প্রথম আদিবাসী নারী ব্যান্ড “এফ মাইনর” ও জনউদ্যোগের যৌথ আয়োজনে এই “ওমেন কনসার্ট” টি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কনসার্টে উদ্বোধনী সঙ্গীত পরিবেশ করে এফ মাইনর। এরপর রাঙ্গামাটি থেকে আগত তিশা দেওয়ান পরপর টিনটি গান পরিবেশন করে মঞ্চ মাতিয়ে তোলে।

তরুন নারী কবি শিশির বিন্দু মঞ্চে সংহতি জানাতে এসে বলেন, এফ আইনরের এই উদয়গ সত্যিই প্রসংশনীয়। এধরনের উদ্যোগ আরও বেশি বেশি করে হোক। নারী মুক্তির লড়াইয়ে এই আয়োজন, এই পথচলা আরও বেগবান করবে।
এরপর এফ মাইনর তাদের দ্বিতীয় গান মঞ্চে পরিবেশন করে।

এফ মাইনরের ওমেন কনসার্ট আয়োজনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে চানচিয়ার সমন্বয়ক ও মাদলের সদস্য এন্থনী রেমা বলেন, নারীদের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকুক। এফ মাইনর নারী এবং আদিবাসী ব্যান্ড হিসেবে নারীর অগ্রযাত্রায়, নারীদের মুক্তির সুদীর্ঘ লড়াইয়ে বড় অবদান রাখুক এই আমাদের প্রত্যাশা।

এরপরই মঞ্চে আসে গানের দল সমগীত। প্রথমে একটি লোকসঙ্গীত পরিবেশনা করে মঞ্চ মাতায়। এরপর পরপর ঝর্নার ছন্দে ও ধর্ম যার যার দুনিয়া সবার গান দুটি পরিবেশন করে।

থিয়েটার সংগঠন বহ্নিশিখা তাদের ছোট থিয়েটার রিডিং মঞ্চস্থ করে। সেখানে বাংলাদেশের বাঙ্গালী, আদিবাসী সহ সকল শ্রেনীপেশার নারীদের শোষণ বঞ্ছনা এবং নির্যাতিত হওয়ার গল্পগুলো উঠে আসে।

টিভি উপস্থাপিকা এবং সাংবাদিক মুন্নী সাহা মঞ্ছে সংহতি জানাতে এসে বলেন, বাংলাদেশের নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে, এফ মাইনর এর একটি উদাহারন। এফ মাইনর সামনের দিনে আরও ভাল একটি গানের দল হিসেবে গড়ে উঠুক এই প্রত্যাশা করি।

এরপর ঐশী ম্রং এবং প্রাপ্ত রেমার যৌথ সঙ্গীত পরিবেশনা অনুষ্ঠানে ভিন্ন মাত্রা যোগ করে।

সমাপনী সঙ্গীত পরিবেশন করে এফ মাইনর। গারো জনগোষ্ঠীর জনপ্রিয় লোকসঙ্গীত রেরে পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের ইতি টানা হয়।