আজ অমর একুশে ফেব্রুয়ারী, মহান ভাষা শহীদ দিবস, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। একুশে ফেব্রুয়ারি বিশ্বের মাতৃভাষার জন্য নির্ভয়ে বুকের রক্ত ঢেলে দেয়ার প্রথম ইতিহাস সৃষ্টির দিন।

এদেশের মানুষ ভাষার জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলো ১৯৫২ সালে। এ ঐক্যের ভিত্তিমূল ছিল অধিকার রক্ষা।

বুকের রক্ত সৃষ্টি করেছে অমর একুশে। ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে বাংলা ভাষাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতির দাবিতে আত্ম্যেৎসর্গের নজির সৃষ্টি করে বাংলাদেশের মানুষ। মাতৃভাষার মর্যাদা সমুন্নত রাখতে ঢাকার রাজপথে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সালাম, জব্বার, রফিক, বরকত, শফিউরসহ বীর সন্তানেরা। এই অমর বীরগাথা আজ কেবল এই, ভূখণ্ডের সীমানায় আবদ্ধ নেই, বাঙালির আত্মত্যাগ স্মরণে একুশে ফেব্রুয়ারি এখন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা মর্যাদার অভিষিক্ত। এ গৌরব বাঙালির, বাংলাদেশের।

আজ সেই অমর একুশে ফেব্রুয়ারি। আজকের প্রথম প্রহরেই বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ খান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারপর একে একে শহীদ মিনারের বেদিতে ফুল অর্পণ করেন, সংসদের স্পিকার, সেনা, বিমান, নৌ বাহিনীর কর্মকর্তারা এবং বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এছাড়া শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে লক্ষ লক্ষ জনতাদের মধ্যে বিভিন্ন আদিবাসী ছাত্র, সামাজিক এবং বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনসমূহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আসেন। এর বাইরে দেশের বিভিন্ন স্থানে আদিবাসীরা স্থানীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তুবক অর্পন করেন।

আজ সারাদিন বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে পালিত হবে অমর একুশে ফেব্রুয়ারি।