অনুসন্ধানী ও সৃজনশীল সাংবাদিকতায় বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল প্রবর্তিত প্রথম বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল পদক-২০১৮ পেতে যাচ্ছেন সাংবাদিক দৈনিক সমকালের বিশেষ প্রতিনিধি রাজীব নূর। গ্রামীন সাংবাদিকতা ক্যাটাগরিতে তিনি এই পদকের জন্য মনোনীত হয়েছেন । আগামী ১৮ই ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ এই পুরষ্কার তার হাতে তুলে দেবেন।

এ বিষয়ে রাজীব নূরের সাথে আমাদের মুঠোফোনে কথা হয় । তিনি এই পদক প্রাপ্তিতে আনন্দ প্রকাশ করে বলেন- আমি এই পদক পাচ্ছি গ্রামীন সাংবাদিকতার জন্য । আমি ঢাকায় এসেছি আশির দশকের মাঝামাঝি, মাঝে পড়াশোনার জন্য চট্টগ্রাম নগরেও ছিলাম । কিন্তু নগরকে কখনোই আমার আপন মনে হয়নি। ফলে আমি সারাক্ষনই গ্রামের মানুষই থেকে গেছি, মনে আর স্বভাবেও কিছুটা । আমার কাজের ক্ষেত্র আমি এমন করে সাজিয়েছি যেনো আমি গ্রামে যেতে পারি আর গ্রামের কথা সেখানকার মানুষের কথা নগরের নাগরিকদের জানাতে পারি । ফলে এই যে গ্রামীন সাংবাদিকতায় আমাকে মনোনীত করা হয়েছে তা আমার আনন্দ অনেকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে ।

দেশের গ্রামীণ জীবনযাত্রা নিয়ে সংবাদপত্র ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় প্রচারিত অনুসন্ধানী ও সৃজনশীল প্রতিবেদনের জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। ‘হাওরের দুঃখ’ শীর্ষক একটি ক্রমিক প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কারটি পাচ্ছেন রাজীব নূর । চার পর্বের ক্রমিক প্রতিবেদনগুলোর মধ্যে ছিলো ‘ধানের দেশে ভাতের কষ্ট’ ‘ঈদ আসছে কান্না নিয়ে’, ‘ঋণের চাপে মাথা নষ্ট’ এবং ‘অভাবে স্বভাব নষ্ট’ । রাজীব নূর এ পুরস্কারসহ মোট সাতবার সাংবাদিকতায় এবং একবার বাংলা একাডেমীর ‘তরুণ লেখক প্রকল্প’র সেরা লেখকের পুরস্কার পেয়েছেন। তিনি বাংলাদেশের আদিবাসীদের নিয়েও আদিবাসীদের পক্ষে অনেক প্রতিবেদন করেছেন ।

বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল অনুসন্ধানী ও সৃজনশীল প্রতিবেদন তৈরির ক্ষেত্রে সংবাদপত্র বা সাংবাদিক বা ফটোজার্নালিস্টদের ভূমিকার স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশে এই প্রথম বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল পদক প্রবর্তন করেছে। গ্রামীন সাংবাদিকতা, উন্নয়ন সাংবাদিকতা, নারী সাংবাদিক ও আলোকচিত্র/ভিডিওচিত্রসহ মোট ৬টি ক্যাটাগরিতে দেয়া হচ্ছে এই পুরস্কার। যার মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক সম্মাননা ও আজীবন সম্মাননা পদক জুরীবোর্ড কর্তৃক সরাসরি সুপারিশের মাধ্যমে চূড়ান্ত করা হয় ।