রাজশাহীর পবা উপজেলাধীন নওহাটা মহানন্দাখাল আদিবাসী পল্লীর ৪০টি আদিবাসী পরিবার এখন উচ্ছেদ আতঙ্কে। স্থানীয় প্রভাবশালীরা তাদেরকে ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে। গত ২৪শে ডিসেম্বর জাতীয় ও স্থানীয় গণমাধ্যমে বিষয়টি প্রকাশ্যে এলে কিছুদিন ওই প্রভাবশালী মহলটি চুপ থাকে। তবে আবারো স্থানীয় একজন বিএনপি সমর্থক নওহাটা পৌরসভার ০১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল কুদ্দুসকে দিয়ে ধারাবাহিকভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে গত মঙ্গলবার রাতে পবা থানায় নিরাপত্তা চেয়ে আদাবাসী পরিবারগুলো সাধারণ ডায়েরী করতে গেলেও তা গ্রহণ করা হয়নি বলে অভিযোগ ওঠেছে। গতকাল ১৭ জানুয়ারি ২০১৮, বুধবার, বিকেলে ভুক্তভোগীরা এসে রাজশাহী প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।
মহানন্দা খালের আদিবাসীরা অভিযোগ করে বলেন, তারা প্রায় ৪০ বছর ধরে সেখানে বসবাস করছেন। তবে তাদেরকে সেখানে বসতি গড়তে সহযোগিতা করেছিলেন এলাকার প্রভাবশালী ভূস্বামী গিয়াশ উদ্দিন। অত্যন্ত জঙ্গলপূর্ণ এলাকা ছিলো মহানন্দা খাল। আদিবাসীরা দিনরাত পরিশ্রম করে সেই খালটি বসবাস উপযোগী করে গড়ে তুলেছেন ।
আদিবাসীদের অভিযোগ, হঠাৎ করেই গিয়াশ উদ্দিনের ছেলে জোবায়ের ওই এলাকাটি ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য আদিবাসীদের হুমকি দিচ্ছেন। পুলিশ প্রশাসনও সহযোগিতা করছে জোবায়েরকে। পরে গণমাধ্যমে বিষয়টি আসলে তারা কিছুদিন নিরব ছিল। এবার স্থানীয় বিএনপি সমর্থক ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল কুদ্দুসকে হাত করে হুমকি-ধামকি অত্যাচার চালিয়ে আসছে। প্রতিদিন রাতে মদ্যপ অবস্থায় অশ্রাব্য ভাষা গালিগালাজ করেন ওই কাউন্সিলর।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- সীমারানী ওঁরাও, আরতি ওঁরাও, লক্ষ্মী ওঁরাও, ফুলিত ওঁরাও, ধীরেন ওঁরাও, সীমন্ত সর্দার, রান্টু ওঁরাও, সাম্যবাদী দলের সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ।