Published On: শুক্র, সেপ্টে ৮, ২০১৭

পাহাড়ে পুনর্বাসন না করে আশ্রয় কেন্দ্র বন্ধ ঘোষণার তীব্র নিন্দা

Share This
Tags

পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের বিকল্প স্থানে পুনর্বাসন না করে আশ্রয় কেন্দ্র বন্ধ করার ঘোষণায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান।

আজ এক বিবৃতিতে রাঙামাটিসহ বিভিন্ন এলাকায় পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের বিকল্প স্থানে পুনর্বাসন না করে আশ্রয় কেন্দ্র বন্ধ করার সরকারি ঘোষণার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বিবৃতিতে কমরেড খালেকুজ্জামান বলেন, গত ১৩ জুন ভয়াবহ পাহাড় ধসের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ১৯টি সরকারি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়, যার মধ্যে বর্তমানে ৬টি আশ্রয় কেন্দ্র চালু আছে; যেখানে বর্তমানে ভিটেমাটি হারা ৭৭৮ জন মানুষ অবস্থান করছেন। আশ্রয় দেয়ার সময় সরকার ঘোষণা করেছিলেন ঝুকিপূর্ণ স্থানে আর কাউকে বাস করতে দেয়া হবে না এবং তাদেরকে সরকারি উদ্যোগে বিকল্প জায়গায় বাড়ি-ঘর নির্মাণ করে পুনর্বাসন করা হবে। কিন্তু গত আড়াই মাসে পুনর্বাসনের কোন উদ্যোগ না নিয়ে উল্টো আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থানকারীদের গত ২৮ আগস্ট থেকে সরকারি ত্রাণ বরাদ্ধ বন্ধ করে দেয়া এবং ৭ সেপ্টেম্বরের পর আশ্রয় কেন্দ্রগুলি না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার ও জেলা প্রশাসন, যা সম্পূর্ণ অমানবিক। রাষ্ট্রের নাগরিকদের প্রতি দায়িত্ব অবহেলার সামিল।

বাসদ সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান অবিলম্বে সরকারের এই অমানবিক সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে বিকল্প স্থানে পুনর্বাসন না করা পর্যন্ত আশ্রয় কেন্দ্র চালু ও সরকারি ত্রাণ বরাদ্দ রাখার দাবি জানান।

About the Author

উপরে